তুমি আসবে বলে

আজ মহাঅষ্টমী। এতক্ষণে নবমী শুরু হয়েছে কিনা জানিনা। একটু পর বাড়ির পথে রওনা হব।

সকালে পলাশ ফোন করেছিল। কবে আসব, জানতে চাইল।

পূজার আবহ অনেকটাই বদলে গেছে। গত কয়েক বছর ঈদ-পূজা কাছাকাছি হওয়ায় সবাই মিলে মজা হত। এবার আর তা হচ্ছে না।

দেখি এবার কি হয়।

Advertisements

প্রিয় হাসিমনি

জীবনের বড় অদ্ভুত সময় অতিক্রম করছি। একের পর এক ঘটনা ঘটছে, যার প্রায় সবগুলোই নেতিবাচক। সবচেয়ে বড় আঘাতটা আসল গত মাসের ৭ তারিখে। বড় কাকার বড় মেয়ে, আমাদের অতি আদরের ছোট্ট হাসিমনি সবাইকে কাঁদিয়ে চলে গেছে। ইংরেজিতে পড়েছিলাম, “A bolt from the blue”

ভাগ্যের নির্মম পরিহাস এমনই। নইলে গ্রামের রাস্তায় ব্যাটারিচালিত রিকশার আঘাতে কেন এমন ঘটবে।

খবরটা শোনার পর কি করব বুঝতে পারছিলাম না।

পরদিন সকালে বাড়ি গেলাম। বাড়িতে হাহাকার করছে সবকিছু। এত সুন্দর মুখখানি, কত কথা। চলে যাবে বলেই হয়ত এত মায়া। আজ কিছুই নেই। নীরবে শুয়ে আছে সবার মাঝে।

নিজ হাতে চিতায় তুলে দিলাম। চিতার আগুন একটু ধরে আসতেই শুরু হল তুমুল বৃষ্টি। যেন সবকিছু সাথে নিয়ে যেতে চায়।

চাঁদনী পসরে কে আমার স্মরণ করে,

কে আইসা দাড়াইছে গো আমার দুয়ারে-